Opu Hasnat

আজ ১৭ ডিসেম্বর সোমবার ২০১৮,

সুনামগঞ্জে সংবাদকর্মী ও তার পরিাবরের উপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন মিডিয়াসুনামগঞ্জ

সুনামগঞ্জে সংবাদকর্মী ও তার পরিাবরের উপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

সুনামগঞ্জ থেকে প্রকাশিত ‘দৈনিক আজকের সুনামগঞ্জ’র বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা প্রতিনিধি মোঃ শফিউল আলম ও তার পরিাবরের সদস্যদের উপর হামলা, বাড়িঘরে ভাংচুর, লুটপাটের ঘটনার প্রতিবাদে  মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার সকালে সুনামগঞ্জ সাংবাদিক সমাজের ব্যানারে শহরের ট্রাফিক পয়েন্টে মানববন্ধন কর্মসূচীতে জেলার বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক্স মিডিয়ার সংবাদকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। মোহনা টেলিভিশনের সুনামগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি কুলেন্দু শেখর দাস’র সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, নিউজ টুয়েন্টি ফোর এর জেলা প্রতিনিধি মোঃ বোরহান উদ্দিন, দৈনিক জালালবাদের প্রতিনিধি মোঃ জসিম উদ্দিন, কৃষক নেতা আব্দুল কাইয়ূম। 

এছাড়াও উপস্থিত উপস্থিত ছিলেন, দৈনিক সিলেট বাণীর জেলা প্রতিনিধি মোঃ মাসুক মিয়া, দৈনিক নয়াদিগন্ত’র জেলা প্রতিনিধি তৌহিদ চৌধুরী প্রদীপ, বিজয় টিভির জেলা প্রতিনিধি অরুণ চক্রবর্তী, একুশে টিভির প্রতিনিধি মোঃ আব্দুস সালাম, দৈনিক আজকালের প্রতিনিধি মোঃ আমিনুল হক, বণিক বার্তার প্রতিনিধি বিপ্লব রায়, বাংলাদেশ আইন সহায়তা কেন্দ্র জেলা শাখার সিনিয়র সহ সভাপতি মোঃ আনোয়ারুল হক, ইয়াং জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশনের সিনিয়র সহ সভাপতি কে এম শহীদুল, সাধারন সম্পাদক মোঃ রুজেল আহমদ, ট্যাভেলস ব্যবসায়ী ও মানববাধিকার কর্মী মোঃ জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ। 

উল্লেখ্য, বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার ফুতেপুর ইউনিয়নের অনন্তপুর গ্রামের সংবাদকর্মী মো: শফিউল আলমের পরিবারের সাথে একই গ্রামের মৃত রইছ আলীর ছেলে ভূমিখেকো মোঃ আব্দুল কাইয়ূম, আফাজ্জুল হোসেন, মৃত সবর আলীর ছেলে মরতুজ আলী, মৃত সবর আলীর ছেলে শওকত আলী গংদের সাথে জমি ও ব্যবসায়ীক লেনদেন নিয়ে পূর্ব বিরোধ চলে আসছিল। এরই জের ধরে গত ১১ মে সকালে প্রতিপক্ষ আব্দুল কাইয়ূম ও তার সহোদর আফাজ্জুল হোসেন গংরা দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে সাংবাদিক শফিউল ও তার পরিাবরের সদস্যদের বাড়িতে গিয়ে তাদের উপর হামলা, বাড়িঘরে ভাংচুর, লুটপাটের পাশপাশি পরিাবরের সদস্যদের অন্ত্র দিয়ে উপর্যূপুরি আঘাত করে। এতে সংবাদকর্মী শফিউলসহ তার পরিবারের নারী পূরুষ ৮ জন গুরুতর আহত হন। আহতরা সবাই সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ ঘটনায় সংবাদকর্মীর বড় ভাই মোঃ ছইফুল আলম বাদী হয়ে গত ১২ ই মে একই গ্রামের মৃত রইছ আলীর ছেলে ভূমিখেকো মোঃ আব্দুল কাইয়ূম, তার সহোদর আফাজ্জুল হোসেন, মৃত ছবর আলীর ছেলে মরতুজ আলী, সহোদর সাজ্জাদ হোসেন, মৃত ফরব উল্ল্যার ছেলে শওকত আলী, মৃত ফজল হকের ছেলে হুমায়ূন, সাজিলের ছেলে হোসাইন, মৃত তালেব আলীর ছেলে সেলিম এই ৯ জনকে আসামী করে বিশ্বম্ভরপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। মামলা দায়েরের ২দিন পেরিয়ে গেলেও পুলিশ মামলাটি আমলে নেয়নি। 

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, অবিলম্বে সংবাদকর্মী ও তার পরিবারের সদস্যদের উপর হামলাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার করে কঠোর শাস্তি প্রদানের জন্য জেলা পুলিশ সুপারের নিকট জোর দাবী জানান। অন্যতায় আগামীতে সাংবাদিক নির্যাতনকারীদের বিরুদ্ধে আরো কঠোর আন্দোলনে যায়ার ও হুশিয়ারী দেন তারা।