Opu Hasnat

আজ ১৯ আগস্ট রবিবার ২০১৮,

দুর্গাপুরে মহাবিপর্যয় : ৩ দিন যাবৎ পানি, বিদ্যুৎ, মোবাইল নেটওয়ার্ক বিকল নেত্রকোনা

দুর্গাপুরে মহাবিপর্যয় : ৩ দিন যাবৎ পানি, বিদ্যুৎ, মোবাইল নেটওয়ার্ক বিকল

নেত্রকোনার দুর্গাপুরে পৌরশহর ও উপজেলার প্রায় ইউনিয়নে বিদ্যুৎ না নাথায় পানি, মোবাইল নেটওয়ার্ক ও বিদ্যুৎ দ্বারা উত্তোলনের পানি সংকট দেখা দিয়েছে।

এ নিয়ে রোববার সরেজমিনে গিয়ে জানাগেছে, গত বৃহস্পতিবার রাতে নেত্রকোনা জেলায় এক প্রলংকারী কাল বৈশাখির তান্ডবে বিদ্যুৎ সংযোগ সহ বহু ঘর-বাড়ী বড় বড় গাছপালা ভেঙ্গে পড়ায় ঐ দিন রাত থেকেই নেত্রকোনার অন্যান্য উপজেলাসহ দুর্গাপুরেও বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। সেই সাথে মোবাইল টাওয়ার গুলোতে বিদ্যুৎ সংযোগ না থাকায় মুঠোফোন গুলোতে নেটওয়ার্ক বিচ্ছিন্ন হওয়ায় সকল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়। স্থানীয় সোলারের দোকান থেকে ৫০টাকায় ল্যাপটপ ও ১০টাকায় ১ঘন্টা মোবাইল ফোন চার্জ করে নিচ্ছেন ভুক্তভোগীরা। শহরে বিদ্যুৎ না থাকায় মোদি দোকান গুলো ৫টাকার মোমবাতি ১০টাকায় বিক্রি করছে, বাসা বাড়ীর ফ্রিজ গুলোতে থাকা বিপুল পরিমান মাছ, মাংস, ফলমুল গুলো নষ্ট হয়ে গেছে, অটো-রিক্সা, ইজি-বাইক বিদ্যুৎ না থাকায় ১০টাকার রিক্সাভাড়া ৫০টাকা দিয়ে সাধারণ রিক্সায় যেতে হচ্ছে চাকুরীজীবিদের। ডিজেল ও পেট্রল ব্যবসায়ীরা গ্রাহকদের কাছ থেকে প্রতি লিটারে ৩থেকে ৫টাকা বেশি হাতিয়ে নিচ্ছেন ব্যাংক, স্কুল, কলেজ, অফিস আদালতে ইন্টারনেট ব্যবহার না করতে পারায় চরম ভোগান্তীর সম্মুখিন হতে হচ্ছে। শহরের চুরি ঠেকাতে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন অতিরিক্ত নিরাপত্তার ব্যবস্থা হাতে নিয়েছে। সর্বোপরি এ যেন স্মরণ কালের চরম বিপর্যয়ের মুখে পড়েছেন উপজেলাবাসী।

বিদ্যুৎ সংযোগ বিষয়ে স্থানীয় পল্লী বিদ্যুৎ জোনাল অফিস‘র ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার বলেন, নেত্রকোনায় প্রায় ২০০জন লোক বিদ্যুৎ লাইন মেরামতের জন্য প্রতিদিন কাজ করছে। নেত্রকোনা জেলার প্রায় উপজেলাতেই বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ রয়েছে। এতবড় ক্ষতি আমাদের চাকুরী জীবনে দেখিনি। আল্লাহ্ চাহেন তো আগামী ২৪ঘন্টার মধ্যে এ বিপর্যয় কাটিয়ে কিছু উপজেলায় বিদ্যুৎ সংযোগ চালু করতে পারবো।