Opu Hasnat

আজ ২২ অক্টোবর সোমবার ২০১৮,

নীলফামারীতে কালবৈশাখী ঝড়ে নিহত ৭ নীলফামারী

নীলফামারীতে কালবৈশাখী ঝড়ে নিহত ৭

নীলফামারীর ডোমার ও জলঢাকা উপজেলায় বৃহস্পতিবার রাতে কালবৈশাখী ঝড়ে ৭ জন নিহত হয়েছেন। এতে আরও বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।

ঝড়ের কবলে পড়ে নিহতরা হলেন, ডোমার উপজেলার গোমনাতি ইউনিয়নের গণি মিয়া (৪০), কেতকিবাড়ী ইউনিয়নের আফিজার রহমান (৪০), ভোগদাবড়ী ইউনিয়নের খোদেজা বেগম (৫০) ও জমিরুল ইসলাম (১২)। এছাড়া জলঢাকা উপজেলার ধর্মপাল খুচিমাদা গ্রামের আলমের স্ত্রী সুমাইয়া (৩০) ও ৩ মাস বয়সী মেয়ে মনি এবং পূর্ব শিমুলবাড়ী গ্রামের মমিনুর রহমানের ছেলে আশিকুর রহমান (২২)।

ঝড়ে ডোমার, ডিমলা ও জলঢাকা উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে রোপা আমন ধানসহ ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। গাছ এবং বিদ্যুতের খুটি ভেঙে পড়ায় যোগযোগ ও বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে পুরো এলাকা।

জলঢাকা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজার রহমান জানান, উপজেলায় ঝড়ে মা-মেয়েসহ ৩ জন নিহতের খবর পাওয়া গেছে।

ডোমার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. উম্মে ফাতিমা জানান, ডোমারে ঝড়ে ২ নারীসহ ৪ জন নিহত হয়েছেন।

ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমুন নাহার বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় সরকারের পাশাপাশি ইউপি চেয়ারম্যানকে তালিকা তৈরি করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এদিকে প্রবল ঝড়ে সোনার ফসল নষ্ট হয়ে যাওয়ায় ডিমলা উপজেলার নাওপাড়া ইউনিয়নে দুশ্চিন্তাগ্রস্ত হয়ে জোতিন্দ্রনাথ রায় (৬০) নামে এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে।