Opu Hasnat

আজ ২৪ মে বৃহস্পতিবার ২০১৮,

শক্তিমান চাকমার শেষ কৃত্যানুষ্ঠানে যাওয়ার পথে দুর্বৃত্তের গুলিতে নিহত ৫ খাগড়াছড়ি

শক্তিমান চাকমার শেষ কৃত্যানুষ্ঠানে যাওয়ার পথে দুর্বৃত্তের গুলিতে নিহত ৫

দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলার নানিয়ারচর উপজেলা এডভোকেট চেয়ারম্যান শক্তিমান চাকমার দাহ অনুষ্ঠানে যাওয়ার পথে মাইক্রবাস লক্ষ্য করে দুর্বৃত্তের গুলি চালানোর ঘটনায় ৫ জন নিহত এবং অন্তত ৯জন আহত হয়েছে। শুক্রবার দুপুর বারোটার দিকে উপজেলার বেতছড়িতে এ ঘটনাটি ঘটে। নিহতদের মধ্যে পাহাড়ের নতুন সংগঠন ইউপিডিএফ’র(গণতান্ত্রিক) আহ্বায়ক তপন জ্যোতি চাকমা বর্মার নামও জানা গেছে। সংগঠনটির মিডিয়া উইং নেতা লিটন চাকমা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। মাইক্রো ড্রাইভার মো: আব্দুর রহিম সজিবও নিহত হয়েছে। নিহত মাইক্রো ড্রাইভার মো: আব্দুর রহিম পানছড়ি উপজেলা কলাবাগান এলাকা বলে জানা গেছে।  আর বাকি নিহতের বিষয়টি স্থানীয় একাধিক সূত্র প্রতিবেদককে নিশ্চিত করেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও এলাকাবাসীর সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত পিসিজেএসএস সংস্কার নেতা ও নানিয়ারচর উপজেলা চেয়ারম্যান এডভোকেট শক্তিমান চাকমার শ্রাদ্ধ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে মহালছড়ি থেকে একটি মাইক্রোবাসে করে বেশ কয়েকজন কর্মী সমর্থক নিয়ে নানিয়াচর দিকে যাত্রা করে। দুপুর ১২টার দিকে গাড়িটি বেতছড়ি এলাকায় পৌঁছালে ওঁত পেতে থাকা সন্ত্রাসীরা গাড়িটি লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়ে। দুর্বৃত্তদের ছোঁড়া গুলি গাড়ির ড্রাইভারের গায়ে প্রথমে লাগলে চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে। গাড়িটি ঘটনাস্থলে উল্টে যায়।

দুর্বৃত্তরা এলোপাথারি গুলি ছুঁড়লে ঘটনাস্থলেই ৩ জন পিসিজেএসএস সদস্য-সমর্থক নিহত হয় ও ৯জন আহত হয়। খবর পেয়ে সেনাবাহিনী দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহতদের উদ্ধার করে খাগড়াছড়ি জেলা সদর আধুনিক হাসপাতালে নিয়ে আসে। সেখানে মাইক্রোবাস বাঙালী চালকসহ ২জন নিহত হয়। 

খাগড়াছড়ি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহাদত হোসেন টিটু সত্যতা স্বীকার করে বলেন, গুলিতে নিহত দুইজনকে খাগড়াছড়ি জেলা সদর আধুনিক হাসপাতালে আনা হয়েছে। আর আহত চারজন খাগড়াছড়ি ও আরও চারজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্যে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। 

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (০৩রা মে) পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির(এমএন লারমা গ্রুপ-পিসিজেএসএস সংস্কার) কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ও নানিয়ারচর উপজেলা চেয়ারম্যান এডভোকেট শক্তিমান চাকমাকে গুলি করে হত্যা করা হয়। এসময় গুলিবিদ্ধ হন তার সঙ্গে থাকা একই সংগঠনের কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক রূপম চাকমা।

অপরদিকে খাগড়াছড়ি জেলা পানছড়ি উপজেলার আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে পিসিজেএসএস-ইউপিডিএফ’র দুই গ্রুপের প্রচন্ড ব›দ্ধুক যুদ্ধ হয়েছে। শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত কানুনগো পাড়ার এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে। তবে ঘটনায় একজন নিহতের কথা শুনা গেলেও নিরাপত্তা বাহিনী তা নিশ্চিত করতে পারেনি। এলাকায় প্রতিবেশীদের মাঝে আতংক ও থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

পানছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মো: মিজানুর রহমান প্রায় ঘন্টা খানেক মতো ইউপিডিএফ ও পিসিজেএসএস-এমএন লারমা/সস্কার মধ্যে বন্দুক যুদ্ধের ঘটনাটি ঘটেছে। তবে হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। এলাকায় বিজিবি তহল অব্যাহত রয়েছে।