Opu Hasnat

আজ ২৬ মে শনিবার ২০১৮,

নাস্তিপুর সীমান্ত থেকে ১৫ কোটি টাকার ৩২০টি স্বর্ণের বার উদ্ধার চুয়াডাঙ্গা

নাস্তিপুর সীমান্ত থেকে ১৫ কোটি টাকার ৩২০টি স্বর্ণের বার উদ্ধার

বাংলাদেশ থেকে অবৈধভাবে ভারতে পাচারের সময় চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলা সীমান্তবর্তী নাস্তিপুর গ্রাম থেকে ১৫ কোটি টাকার ৩২০টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করেছে বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের সদস্যরা। বুধবার দুপুরে দামুড়হুদা উপজেলার নাস্তিপুর সীমান্তের মাথাভাঙ্গা নদী থেকে স্বর্ণের চালানটি জব্দ করা হয়। তবে কোন পাচারকারীকে আটক করা যায়নি।

চুয়াডাঙ্গা-৬ বিজিবি ব্যাটালিয়নের  পরিচালক ইমাম হাসান জানান, চুয়াডাঙ্গা থেকে ভারতে স্বর্ণের একটি চালান যাবে এমন গোপন সংবাদ পায় বিজিবি। বুধবার সকাল থেকে সীমান্তবর্তী সুলতানপুর ক্যাম্পের কমান্ডার হাবিলদার বীরোন্দ একদল বিজিবি সদস্য নিয়ে নাস্তিপুর ভারত সীমান্তের আশাপাশে অবস্থান করছিল। দুপুর ৩টার দিকে নাস্তিপুর সীমান্তের ৮০ নম্বর প্রধান খুঁটির কাছে বাংলাদেশের ৫০ গজ অভ্যন্তরে  অজ্ঞাত ৩ জনকে দেখতে পেয়ে বিজিবি সদস্যরা তাদের আটকের উদ্দেশ্যে এগিয়ে যায়। এ সময় বিজিবি সদস্যদের দেখতে পেয়ে ওই তিন চোরাকারবারী তাদের কাছে থাকা তিনটি ব্যাগ মাথাভাঙ্গা নদীতে ফেলে সাঁতরে ভারতের অংশে ঢুকে পড়ে। পরে বিজিবি সদস্যরা মাথাভাঙ্গা নদীতে তল্লাশী চালিয়ে চোরাকারবারীদের ফেলে যাওয়া তিনটি ব্যাগ উদ্ধার করে। এতবড় স্বর্ণের চালন উদ্ধারের খবর পেয়ে এদিন বিকালে বিজিবির কুষ্টিয়া সেক্টর কমান্ডার কর্নেল আরশাদ হোসেনসহ বিজিবির উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছান। তাদের উপস্থিতিতে চোরাকারবারীদের ফেলে যাওয়া ব্যাগ খুলে ব্যাগে থাকা ৩২০টি স্বর্ণের বার পাওয়া যার। ওজন ৩৭ কেজি। উদ্ধারকরা স্বর্ণের বারের আনুমানিক বাজার মূল্য প্রায় ১৫ কোটি টাকা। তবে চোরাকারবারীরা ভারতের অংশে ঢুকে পড়ায় তাদেরকে আটক করা সম্ভব হয়নি বলে দাবি করেন তিনি।