Opu Hasnat

আজ ১৬ আগস্ট বৃহস্পতিবার ২০১৮,

সরকার-সেনাবাহিনীর বিরোধ সৃষ্টির উস্কানি দিচ্ছে বিএনপি : সেতুমন্ত্রী রাজনীতি

সরকার-সেনাবাহিনীর বিরোধ সৃষ্টির উস্কানি দিচ্ছে বিএনপি : সেতুমন্ত্রী

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপির সেনা মোতায়েনের দাবি সেনাবাহিনীর সঙ্গে সরকারের বিরোধ বাঁধানোর উস্কানি।

শুক্রবার বিকালে রাজধানীর কাকরাইলে হোটেল রাজমণি ঈশাখাঁ-য় এক অনুষ্ঠানে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

গাজীপুর ও খুলনা সিটি নির্বাচনে বিএনপির সেনা মোতায়েনের দাবি সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, সেনাবাহিনী নিয়োগের যৌক্তিকতা থাকতে হবে। 

সেনাবাহিনী নিয়োগ করার মতো পরিস্থিতি হলে নির্বাচন কমিশন সরকারের সঙ্গে আলাপ করবে, চাহিদা দেবে এবং প্রয়োজনে সরকারকে অনুরোধ করবে। পরিস্থিতি সেরকম হলে সরকারও সায় দেবে।

কাদের বলেন, ‘আপনি নিজে যা করেননি, সেটা দাবি করেন কেন? এটা অবস্থা অনুযায়ী ব্যবস্থা হবে। সিটি করপোরেশন নির্বাচনে কি সে রকম পরিস্থিতির উদ্ভব হয়েছে? তাহলে অযোক্তিক দাবি, এই দাবিটা করে সেনা বাহিনীকে কেন বিতর্কিত করতে চাইছেন? এটা হলো আমার প্রশ্ন।’

‘আমি জিজ্ঞেস করতে চাই বিএনপি নেতাদের তারা যখন ক্ষমতায় ছিল, তখন কোনো নির্বাচনে সেনাবাহিনী নিয়োগ করেছিল? একটা নির্বাচনেও না। সিটি করপোরেশন থেকে জাতীয় নির্বাচনে, অনেক ইলেকশন তো হয়ে গেছে তখন। আপনারা তো সেনাবাহিনী নিয়োগ করেননি।’

‘সেনাবাহিনী নিয়োগের যৌক্তিকতা কতটুকু? সে রকম পরিস্থিতি হলে সেনাবাহিনী নিয়োগ করবে কি না- সেটা ইলেকশন কমিশন সরকারের সঙ্গে আলাপ করবে। ইলেকশন কমিশন ডিমান্ড দেবে। কারণ আইনপ্রয়োগকারী সংস্থা নির্বাচনের সময় ইসির অধীনে গেলেও সেনাবাহিনী কিন্তু যাবে না। সেনাবাহিনী প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে থাকবে। সেনাবাহিনী নিয়োগ করতে হলে সরকারকে ইসি অনুরোধ করতে হবে।’

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘পরিস্থিতি যদি সেনাবাহিনী নিয়োগের মতো হয় তাহলে সরকারও সায় দিতে পারবে। কিন্তু সে রকম পরিস্থিতির উদ্ভব না হলে শুধু শুধু সেনাবাহিনী নিয়োগ কর, সেনাবাহিনী, সেনাবাহিনী বলে। আমি রাষ্ট্রীয় অনেকগুলো প্রতিষ্ঠানে ক্ষমতায় থাকাকালে যারা (বিএনপি) অভিযোগ করছেন, আমি তাদের (বিএনপি) অনুরোধ করব, এই প্রতিষ্ঠানটাকে (সেনাবাহিনী) বিতর্কিত করবেন না।’

বিভিন্ন এলাকায় সড়ক নির্মাণ ও মেরামতের ক্ষেত্রে ভোগান্তি হচ্ছে স্বীকার করে কাদের বলেন, ‘বাচ্চা জন্ম দিতে মায়ের তো যন্ত্রণা হয়, এখন রাস্তা হচ্ছে, ব্রিজ হচ্ছে তাঁর বার্থ পেইন আছে না? সেটা মানবেন না কেন? দেশের মিড়িয়ার একটা বড় অংশ এটাকে রাজনীতিতে নিয়ে যায়। এখানে বেশি কাজ হচ্ছে, একে অ্যাটাক করে।’

অনুষ্ঠানে চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চনসহ সরকারের বিভিন্ন পদস্থ কর্মকর্তা ও ট্যুরিজম ব্যবসা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।