Opu Hasnat

আজ ২৫ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার ২০১৮,

ব্রেকিং নিউজ

খাগড়াছড়ি-রাঙামাটি সীমান্তে প্রতিপক্ষের গুলিতে ২ ইউপিডিএফ সদস্য নিহত খাগড়াছড়ি

খাগড়াছড়ি-রাঙামাটি সীমান্তে প্রতিপক্ষের গুলিতে ২ ইউপিডিএফ সদস্য নিহত

খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার দীঘিনালা উপজেলায় মারিশ্যা-দীঘিনালা প্রধান সড়কে জোড়া ব্রীজ এলাকায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট’র (ইউপিডিএফ) কর্মী তপন জ্যোতি চাকমা (৪০) ও বিজয় চাকমা (৩২) নামে দুই জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। রোববার (১৫ এপ্রিল) রাতে এ ঘটনা  ঘটে বলে সূত্রে জানা গেছে।
 
মো: আল আমিন জানান, সন্ধ্যা ৭টার দিকে ২ জন ইউপিডিএফ’র কর্মীকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে এমন সংবাদ বিভিন্ন স্থানীয় লোকমুখে শোনা গেছে। মারিশ্যা-দিঘীনালা সড়কে জোড়া ব্রীজ এলাকায় প্রতিপক্ষের গুলিতে তপন চাকমা ও বিজয় চাকমা নামে দুই ইউপিডিএফ কর্মী নিহতের সংবাদটি রোববার সন্ধ্যা ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটেছে বলে নিরাপত্তা বাহিনীর একটি সূত্র প্রতিবেদককে নিশ্চিত করেছে।

ঘটনার বিবরনে জানা যায়, রাঙামাটি ও খাগড়াছড়ি সীমান্তে প্রতিপক্ষের গুলিতে দুই ইউপিডিএফ কর্মী নিহত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। রোববার (১৫ই এপ্রিল) সন্ধ্যা সাতটার দিকে এ ঘটনা ঘটে বলে নিরাপত্তা বাহিনীর একটি সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

নিরাপত্তা বাহিনী সূত্রে জানা গেছে, রাঙামাটিস্থ বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেক ইউনিয়নের মারিশ্যা-দীঘিনালা সড়কের জোড়া ব্রিজ এলাকায় ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট’র (ইউপিডিএফ) কর্মী তপন চাকমাকে(৪০) গুলি করে হত্যা করে তাদের প্রতিপক্ষ।

অপরদিকে, রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সীমান্তবর্তী বাঘাইছড়ি উপজেলার মারিশ্যা-দীঘিনালা প্রধান সড়কের ৮-৯ কিলোমিটার  নামক স্থানে ইউপিএিফ’র আরেক কর্মী বিজয় চাকমাকে (৩২) হত্যা করেছে তাদের প্রতিপক্ষ।

ঘটনাটির এলাকা নিশ্চিত করার জন্য খাগড়াছড়িস্থ দীঘিনালা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: সামসুদ্দীন ভূইয়া এবং রাঙামাটিস্থ বাঘাইছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমির হোসেন’র সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা উভয়ই ঘটনাটি একে অপরের এলাকায় বলে দাবি করেন। তবে এ ব্যাপারে দীঘিনালা থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) মো: সামসুদ্দিন ভূইয়া জানিয়েছেন ঘটনাটি কতটুকু সত্য তা খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে। আসলে এ ঘটনাটি কারা ঘটিয়েছে বা আদৌ ঘটেছে কিনা তা কোনোভাবেই এখন পর্যন্ত নিশ্চিত হওয়া যায় নি।

মূলত রাত হওয়ার ও অত্যান্ত দূর্গমতার কারণে সঠিক তথ্য পাওয়া যাচ্ছে না। তবে পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থলের দিকে রওনা হয়েছে। তারা ফিরে এলে বিস্তারিত জানা যাবে। মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে জানা গেছে।