Opu Hasnat

আজ ২৫ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার ২০১৮,

ব্রেকিং নিউজ

রাজবাড়ীতে লালন স্মরন উৎসব রাজবাড়ী

রাজবাড়ীতে লালন স্মরন উৎসব

সাম্প্রদায়িকতা, সহিংসতা বা সংঘাত নয়, বরং লালন ফকির প্রচার করেছেন তাঁর জাতপাতহীন মানবধর্ম। মানবতার প্রাণপুরুষ এই বাউল সম্রাটের জীবন-কর্ম, ধর্ম-দর্শন, মরমী সংগীত ও চিন্তা চেতনা থেকে শিক্ষা নিতে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে হাজার হাজার ভক্ত অনুরাগী, দর্শনার্থী ভীড় করেছিল রাজবাড়ী সদর উপজেলার খানগঞ্জ ইউনিয়নের হরিহরপুর আরশি নগর লালন স্মৃাত সংঘে। সুফি সম্রাট মহামতি লালন সাইজীর আর্বিভাব দিবস উপলক্ষে আয়োজিত লালন স্মরন উৎসবে। আয়োজকরা মনে করছেন একমাত্র লালনের বানী পৌছে দিতে পারলে সমাজ থেকে  সাম্প্রদায়িকতা, সহিংসতা বা সংঘাত দুর করা সম্ভব হবে। 

ফকির লালন শাহ তার জীবদ্দশায় দোল পূর্ণিমাতে বাউল, সাধু ও ভক্তদের নিয়ে দোলৎসব উপলক্ষে করতেন সাধুসঙ্গ। সেই রীতিনীতি অনুযায়ী এখনো তাঁর ভক্তরা এই উৎসব পালন করে থাকেন। এ বছর দোল উৎসব উপলক্ষে রাজবাড়ী সদর উপজেলার খানগঞ্জ ইউনিয়নের হরিহরপুর আরশি নগর লালন স্মৃতি সংঘ সোমবার রাতে একদিন ব্যপী লালন স্মরন উৎসবের আয়োজন করে। 

উৎসবে যোগ দিতে দেশের  নানা প্রান্ত থেকে ছুটে এসেছেন সাধু-গুরু, বাউল, ভক্তরা। আর দেশ রবেন্য শিল্পিরা লালন সংগীত পরিবেশন করে মাতিয়ে রাখেন মঞ্চ। লালন গান পরিবেশন করেন লালন বাউল শিল্পি পাগলা বাবুল, মনিকা খানম সুমিসহ স্থানীয় রাজবাড়ী ফরিদপুর ও কুষ্টিয়া থেকে আসা শিল্পিরা।

লালন অনুসারীরা জানান, লালন সাইজির দর্শন পাওয়া ও অচেনাকে চেনা, আত্মার শুদ্ধি, মুক্তি, জ্ঞান লাভের আশায় তারা ছুটে আসেন। মানব ধর্ম সব চাইতে বড় ধর্ম। লালনের সমস্ত গানে সেই মানব ধর্মের কথাই বলা হয়েছে। আর একমাত্র লালনের বাণী মনের ভিতর সঠিকভাবে ধারন করতে পারলেই মানুষ নিজেকে চিনতে ও জানতে পারবে। আর মানুষ নিজেকে সঠিক ভাবে চিনতে পারলে পৃথিবী থেকে সব হানাহানি দুর হয়ে যাবে বলে মনে করেন লালন অনুসারীরা। 

বেলগাছি আরশি নগরের উপদেষ্টা আশরাফুল আলম আক্কাছ জানান, এইদিনে কুষ্টিয়ার কালী নদীর তীরে ফকির লালন সাইজিকে তার পালক মাতা আহত অবস্থায় পেয়েছিলেন তাই লালণ অনুসারীরা দোল উৎসব পালন করে থাকে। একমাত্র লালনের বানী পৌছে দিতে পারলে সমাজ থেকে  সাম্প্রদায়িকতা, সহিংসতা বা সংঘাত দুর করা সম্ভব হবে।

লালন গবেষক ও জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার শাখার উপ পরিচালক ড.আজাদুর রহমান জানান, হানাহানির বিশ্বে জাতি-ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সব মানুষকে একই স্রোতধারায় আনতে লালনের বাণী সকলের প্রেরনা। তার অহিংসার বাণী ও জাতহীন দর্শনের বাস্তবায়ন করতে পারলেই, শান্তি আসবে সর্বময়, সার্থক হবে এই আয়োজন।