Opu Hasnat

আজ ২১ অক্টোবর রবিবার ২০১৮,

চাঁপাইনবাবগঞ্জের চরে ‘জঙ্গি আস্তানায়’ অভিযান : নিহত ৩ চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চাঁপাইনবাবগঞ্জের চরে ‘জঙ্গি আস্তানায়’ অভিযান : নিহত ৩

রাজশাহীর গোদাগাড়ী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদরের চর সীমান্তের আলাতুলীর মধ্যচরে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে ঘিরে রাখা বাড়িতে র‌্যাবের তল্লাশি শেষ হয়েছে। 

ধ্বংসস্তূপের মধ্যে মানবদেহের বিভিন্ন অংশ ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকতে দেখা গেছে। বাড়িতে ক্ষতবিক্ষত তিনজনের লাশ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন, র‍্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান। বিস্ফোরক নিষ্ক্রিয় করার কাজ চলছে। সেখান থেকে কিছু বিস্ফোরক পাওয়া গেছে। 

র‌্যাবের মিডিয়া উইংয়ের প্রধান মুফতি মাহমুদ খান জানান, মঙ্গলবার সকালে ওই বাড়ির মালিক রাশিকুলের স্ত্রী নাজমা বেগম, নাজমার মা-বাবা মিনারা বেগম ও  খোরশেদ আলীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হেফাজতে নেয়ো হয়েছে। রাশিকুল দীর্ঘদিন ধরে রোগের কারণে বিছানায় পড়ে আছেন।

বাড়িটিতে কাজ করছে ঢাকা থেকে আসা র‍্যাবের বোমা নিষ্ক্রিয়কারী দল। র‍্যাব বলছে, ‘জঙ্গি আস্তানাটির’ আশপাশে প্রায় দুই কিলোমিটার এলাকা জুড়ে কোনো বাড়িঘর নেই। এই চরে অতিথি পাখির ছবি তুলবে বলে কয়েক মাস আগে দুজন ব্যক্তি বাড়িটি ভাড়া নেন।

চর আলাতুলী ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মেসবাউল হক কালু জানান, বাথান বাড়িতে রাশিকুল, তার স্ত্রী, ১৫ বছর বয়সী এক ছেলে এবং তার শ্বশুর থাকতেন। রাশিকুল ইসলাম ক্যান্সারে আক্রান্ত। বছর চারেক আগে গরু-ছাগল পালনের সুবিধার জন্য তিনি ওই বাথান বাড়িটি বানিয়েছিলেন। তবে নির্জন এলাকা হওয়ায় বাড়িটিতে জঙ্গী কার্যক্রম চালানোর ব্যাপারে তারা কিছু টের পাননি।

এর আগে মঙ্গলবার ভোর রাতে পদ্মার ওপারে চর আলাতুলী ইউনিয়নের মধ্যচর এলাকার ওই বাথান বাড়িতে জঙ্গী আস্তানার সন্ধান পায় র‌্যাব। এরপর সেখানে র‌্যাব সদস্যরা অভিযানে গেলে গোলাগুলির ঘটনাও ঘটে। পরে বিস্ফোরণে বাড়িটিতে আগুন ধরে যায়। এরপর থেকে বাড়িটি ঘিরে অভিযান চালায় র‌্যাব সদস্যরা।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছান র‌্যাবের গণমাধ্যম শাখার প্রধান মুফতি মাহমুদ। পরে তিনি সংবাদিকদের জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাত থেকেই ঘিরে রাখা হয় বাড়িটি। এরপর ভোর রাতে সেখানে অবস্থানকারীদের আত্মসমর্পণের আহ্বান জানানো হয়। কিন্তু সাড়া না দিয়ে বাড়ির ভেতরে দুই দফা বিস্ফোরণ ঘটায় জঙ্গীরা।

তিনি আরও বলেন, জঙ্গী আস্তানায় আরও বিস্ফোরক থাকতে পারে। র্যাবের বোমা নিষ্ক্রিয়কারী দলের অভিযান শেষে বিস্তারিত জানানো হবে।

এর আগে সকালে র‌্যাব-৫ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল মাহবুব আলম জানান, ভোর রাতে বাড়িটিতে অভিযানের শুরুতেই সেখান থেকে গুলি ও গ্রেনেড ছুড়ে জঙ্গীরা। এতে বাড়িটির একটি অংশে আগুন ধরে যায়।

ঘটনাস্থল থেকে অবিস্ফোরিত তিনটি আইইডি (ইম্প্রোভাইজড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস) উদ্ধার করে নিস্ক্রিয় করেছে র‌্যাব। উদ্ধার করেছে দুটি পিস্তল, সাতটি ডেটোনেটর, ১২টি পাওয়ার জেল ও বোমা তৈরির বিভিন্ন সরঞ্জাম।