Opu Hasnat

আজ ২৩ জুন শনিবার ২০১৮,

মাধবকুণ্ড জলপ্রপাত অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ মৌলভীবাজার

মাধবকুণ্ড জলপ্রপাত অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ

মাধবকুণ্ড জলপ্রপাত পর্যটনকেন্দ্রে দর্শনার্থী প্রবেশ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ। ভারি বর্ষণ আর উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের পানিতে রাস্তা ও টিলা ধসের কারনে এ সিদ্ধান্ত।

এ ছাড়া জেলার বিভিন্ন উপজেলায় টিলাঘেরা সবুজ চা বাগান, খাসিয়া পল্লি, এশিয়ার বৃহত্তম হাকালুকি হাওর, কমলগঞ্জের লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান, ছায়া নিবিড় পরিবেশে অবস্থিত নয়নাভিরাম মাধবপুর লেক, ঝর্ণাধারা হামহাম জলপ্রপাত, মাগুরছড়া খাসিয়া পুঞ্জি, শিল্পকলা সমৃদ্ধ মণিপুরীসহ ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র জাতিসত্তা, শ্রীমঙ্গলের নীলকণ্ঠের সাত রংয়ের চা, আন্তর্জাতিক মানের হোটেল গ্র্যান্ড সুলতান, চা গবেষণা কেন্দ্র, কুলাউড়ার ঐতিহ্যবাহী নবাববাড়ী, মুরইছড়া ইকোপার্ক, গগন টিলা, দোলন চাপা ইকোপার্ক, মৌলভীবাজার সদরের বর্ষীজোড়া ইকোপার্ক, মুন ব্যারেজসহ অন্যান্য পর্যটনকেন্দ্রগুলোর মধ্যে দু-একটি ছাড়া অন্যগুলোতে গেল বছরের মতো নেই তেমন কোনো প্রস্তুতি।

বনবিভাগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, অতিবৃষ্টিতে মাধবকুণ্ড জলপ্রপাতের প্রধান ফটক দিয়ে প্রবেশের পর পর্যটন রেস্তোরাঁর কাছে প্রায় ৪০ ফুট দৈর্ঘ্য এলাকার দুই ফুট দেবে গেছে। এ ছাড়া জলপ্রপাতের কুণ্ডে নামার সিঁড়ির নিচের প্রায় ৪০ ফুটের মাটি সরে গেছে। প্রবেশ পথের দুপাশের টিলাগুলোতে ফাটল দেখা দেওয়ায় ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। এতে ওই পর্যটন কেন্দ্রটি আরো ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে।

প্রতিবছর ঈদের ছুটিতে আনন্দ উপভোগ করতে জলপ্রপাত ও ইকোপার্ক এলাকায় হাজার হাজার পর্যটকের ভিড় জমে। কিন্ত এবার ঈদ উপলক্ষে মাধবকুন্ড পর্যটক শূন্য থাকবে বলেই অনেকে মনে করছেন।