Opu Hasnat

আজ ৭ ডিসেম্বর শনিবার ২০১৯,

শিক্ষকের উপর হামলার প্রতিবাদে মাদ্রাসা ছাত্রদের সড়ক অবরোধ

ছাতকে দু’গ্রামবাসীর সংঘর্ষে মাদ্রাসা শিক্ষকসহ আহত ২০ সুনামগঞ্জ

ছাতকে দু’গ্রামবাসীর সংঘর্ষে মাদ্রাসা শিক্ষকসহ আহত ২০

সুনামগঞ্জের ছাতকে দু’গ্রামবাসীর রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে অন্তত ২০ জন ব্যক্তি আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আহত শিক্ষকের অবস্থা আশংকা জনক হওয়ায় মাদ্রাসা ছাত্ররা দু’ঘন্টা অবরোধ করে সিলেট সুনামগঞ্জ সড়কে যান চলাচল বন্ধ রাখে। 

থানায় অভিযোগ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায় উপজেলার খুরমা উত্তর ইউনিয়নের ফুরকান নগর গ্রামের খাইরুল ইসলামের ছেলে খুরমা উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা বিল্লাল আহমদ ও আমেরতল গ্রামের মৃত রইদ আলীর ছেলে ধারন নতুন বাজার দাখিল মাদ্রাসার ইবতেদায়ী (প্রধান) শিক্ষক আব্দুল মোমিনের মধ্যে দীর্ঘ দিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। 

এর জের ধরে গত শনিবার সন্ধ্যায় আমেরতল জামে মসজিদ হতে নামাজ আদায় শেষে আব্দুল মোমিন বের হলে ইউপি চেয়ারম্যান বিল্লাল আহমদের নির্দেশে ফুরকাননগর গ্রামের মৃত সিকন্দর আলীর ছেলে লিটন মিয়া ও তার সহযোগিরা দেশীয় অস্ত্র সস্ত্র দিয়ে হামলা করলে আব্দুল মোমিন রক্তাক্ত জখম হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। ঘন্টা ব্যাপী দু’পক্ষের তুমুল সংঘর্ষ শেষে স্থানীয়রা আব্দুল মোমিন কে ঘটনাস্থল হতে উদ্ধার করে আশংকা জনক অবস্থায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেন। অন্যান্য আহতদের স্থানীয় কৈতক হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। 

মাদ্রাসা শিক্ষক আব্দুল মোমিনের উপর হামলার প্রতিবাদে রোববার দুপুর ১২ টা হতে ২টা পর্যন্ত প্রায় দু’ঘন্টা ব্যাপী সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের ধারন বাজার নামক স্থানে ধারন নতুন বাজার দাখিল মাদ্রাসার ছাত্র শিক্ষকগন সড়ক অবরোধ করে হামলাকারীদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দাবী করেন। 

পরে ছাতক থানার উপ পরিদর্শক আব্দুল মান্নান ও শফিকুল ইসলাম অবরোধস্থলে এসে ছাত্রদের শান্তনা দিলে অবরোধ কারী ছাত্ররা অবরোধ তুলে নেয়। 

এ ব্যাপারে খুরমা উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বিল্লাল আহমদ জানান এ ঘটনাটি কৃষি ক্ষেতের জমিতে গরুর ধান খাওয়া কে কেন্দ্র করে ঘটেছে। 

থানার ওসি তদন্ত আশরাফুল ইসলাম জানান পুলিশের মাধ্যমে অবরোধ তুলা হয়েছে। মামলা হলে আইনী ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।